হযরত হাসান বসরী (রঃ) - পর্ব ৪ | আমার কথা
×

 

 

হযরত হাসান বসরী (রঃ) - পর্ব ৪

coSam ৩২৮


হযরত হাসান বসরী (রঃ) -৩য় পড়তে এখানে ক্লিক করুন

আর পণ্ডিত সমাজ বলে গেলেন! রাজকুমার আমরা আপনার জন্য দুঃখিত। কিন্তু কী আর করা যাবে। আমাদের পণ্ডিত্য যদি আপনাকে রক্ষা করতে পারত, তাহলে তা প্রয়োগ করতে কিছু কম করতাম না। কিন্তু এক্ষেত্রে জ্ঞান, বুদ্ধি, বিদ্যা কিছুই কার্যকর নয়। কোন বিদ্যাই এ অবস্থায় আটকাতে পারে না।

পরে মহিলারা এসে বলে গেল, যুবরাজ! আপনার বিচ্ছেদ-বেদনা অসহ্য। আপনাকে হারিয়ে আমরা চোখের পানিতে ভাসছি। কিন্তু কিছু করার নেই। আমাদের রুপ-লাবণ্য যদি আপনাকে রক্ষা করার কাজে লাগানো যেত, তাহলে কখনই আমরা পিছপা হতাম না, কিন্তু এ ঘটনা প্রবাহের নিয়ন্তা যিনি, তাঁর কাছে আমাদের কোন মূল্য নেই। আমরা আপনার জন্য কিছু করতে অক্ষম।

সব শেষে সম্রাট। তিনি তাঁর পুত্রের উদ্দেশ্য বললেন, প্রিয়তম পুত্র! তোমার পিতার শক্তি-সামার্থ্য আর কতটুকু! কত সৈন্য রয়েছে আমার। রয়েছে জ্ঞানী, গুণী, বিদ্বান। তারা সবাই তোমার হিতকামী ছিল। সবাই তোমার দীর্ঘ জীবন কামনা করত। কিন্তু তোমার প্রাণ রক্ষার ব্যাপারে সবাই অক্ষম।

আমি আজ সবাইকে তোমার কাছে হাজির করেছি। আর তারা তাঁদের অক্ষমতার কথা তোমাকে জানিয়ে দিয়ে গেল। আমি আর কী বলব! পুত্র স্নেহ যে কী, যার পুত্র রয়েছে সে ছাড়া আর কেউ তা উপলব্ধি করতে পারবে না। আমার সৈন্য-সামন্ত, অর্থ, উপকরণ, বিদ্যা-বুদ্ধি বা যে কোন শক্তি প্রয়োগ করে যদি তোমাকে রক্ষা করা সম্ভব হত তাহলে আমি কখনও পিছপা হতাম না।

সাম্রাজ্য, সম্পদ বিসর্জন দিয়েও যদি তোমাকে রক্ষা করতে পারতাম, তাতেও কোন ত্রুটি হত না। কিন্তু ঘটনার মালিক যিনি, তাঁর কাছে তোমার পিতা, এমনকি পৃথিবীর যে কোন সম্রাট, বীর, যোদ্ধা একান্তই দুর্বল।

অতএব, প্রাণাধিক পুত্র আমার, তোমার রক্ষার ব্যাপারে আমি কিছুই করতে পারলাম না। মন্ত্রীর মুখে ঘটনার বিবরণ শুনে হযরত হাসান (রঃ)-এর মনে ভাবান্তর দেখা দিল। ফুটে উঠল পার্থিব জীবনের অসারতা। ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রতি তাঁর আকর্ষণ রইল না। সবকিছু ছেড়ে সহসা তিনি চলে গেলেন বসরায়। প্রতিজ্ঞা করলেন, আর কোনদিন সংসারের মায়াজালে আবদ্ধ হবেন না। সেখানে শুরু হল তাঁর একাগ্র আধ্যাত্নিক জীবন।

আল্লাহ্‌র উপাসনায় নিমগ্ন হলেন তিনি। সে এক কঠিন অকল্পনীয় জীবন সাধনা। সেকালে তাঁর মতো তপস্বী আর দেখা যায়নি। কখন যে কী হয়, আলেমুল গায়েব আল্লাহই তা জানেন। মহানবীর কিংবা নবী পত্নীর দোয়া আল্লাহ্‌ মঞ্জুর করেন। শিশু হাসান হয়ে ওঠেন মহাসাধক হযরত হাসান বসরী (রঃ) নামে খ্যাত।

হযরত হাসান বসরী (রঃ) - ৫পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন

সূত্রঃ তাযকিরাতুল আউলিয়া

পরবর্তী গল্প
হযরত হাসান বসরী (রঃ) - পর্ব ৫

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত হাসান বসরী (রঃ) - পর্ব ৩

ক্যাটেগরী