হযরত সুলাইমান (আঃ) কে পরীক্ষা | আমার কথা
×

 

 

হযরত সুলাইমান (আঃ) কে পরীক্ষা

coSam ২০০


হযরত সুলাইমান (আঃ) ছিলেন জিহাদের প্রতি অত্যন্ত আগ্রহী তিনি সবসময় আল্লাহর পথে জিহাদের চিন্তায় মশগুল থাকতেন। জিহাদের প্রতি তার প্রবল আগ্রহ ও আকর্ষণের কারণেই জিহাদের জন্য রক্ষিত ঘোড়াসমূহের দেখাশুনা করতে গিয়ে এক ওয়াক্তের নামায পর্যন্ত কাজা হয়ে গিয়েছিল। বর্ণিত আছে যে, তার একশ স্ত্রী ছিল। একদিন তিনি বলেন, অদ্য রাতে আমি আমার সকল স্ত্রী সাথে মিলন করব যাতে সকল স্ত্রী হতেই একটি করে সন্তান জন্ম গ্রহণ করবে। আর সন্তনরা বড় হয়ে আল্লাহর পথে জিহাদ করবে। এ কথাগুলো যখন বাহিরে বলছিলেন তখন তিনি ইনশা আল্লাহ বলতে ভুলে গিয়েছিলেন। প্রিয় ব্যক্তিরা সামান্য ক্রুটির কারণেও পাকড়াও হয়ে যায়। এ ক্রুটির কারণে মিলনে তার কোন স্ত্রীর গর্ভেই সন্তান জন্ম লাভ করেনি। মাত্র এক স্ত্রীর বাচ্চা জন্ম হল। তাও অপূর্ণাঙ্গ দেহের। বাচ্চার পা ছিল না বরং গোশতের টুকরায় ন্যায় একটি দেহ। তারই কোন এক সেবিকা এ গোশতের টুকরা শাদৃশ বাচ্চাটি সিংহাসনের উপর রেখে দিল। তিনি অপূর্ণ দেহের বাচ্চাটি দেখে সাথে সাথে বুঝতে পারলেন যে, বাচ্চার এ অবস্থা হওয়ার কারণ হল ইনশা আল্লাহ না বলা। তৎক্ষাণাৎ তিনি স্বীয় অপরাধের ক্ষমা প্রার্থনা করে স্বীয় প্রভুর কাছে আত্মসমর্পণ করে কান্নাকাটি করলেন। পবিত্র কোরআনে ইরশাদ হয়েছে- অর্থঃ আর নিশ্চয় আমি সুলাইমাকে পরীক্ষা করেছি এবং তার সিংহাসনে একটি দেহ ঢেলে দিয়েছি। অতঃপর তিনি স্বীয় প্রভুর দিকে ঝুকে পড়লেন।

পরবর্তী গল্প
নিহত ব্যক্তির কথা বলার ঘটনা - পর্ব ১

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত দাউদ (আঃ)

ক্যাটেগরী