হযরত মূসার (আঃ) সাথে শয়তানের বাক্যলাপ | আমার কথা
×

 

 

হযরত মূসার (আঃ) সাথে শয়তানের বাক্যলাপ

coSam ৬৪৮


হযরত মূসা (আঃ) একবার কোথাও যাচ্ছিলেন। সেই সময় অভিশপ্ত ইবলীস তাঁর কাছ আসে। তার মাথায় তখন ছিল একটা রঙচঙের টুপি। হযরত মূসা (আঃ) এর কাছাকাছি এসে শয়তান টুপিটা খুলে বলে, আস সালামু আলাইকা ইয়া মূসা ! হযরত মূসা (আঃ) জানতে চান, তুমি কে হে?

আমি ইবলীস।

আল্লাহ্‌ তোর সর্বনাশ করুক। কেন এসেছিস এখানে? আপনার হাতে মুসলমান হওয়ার জন্য।  কারণ আপনার মান-মর্যাদা অনেক বেশি আল্লাহ্‌র দরবারে।

তোর মাথায় একটু আগে কী যেন দেখছিলাম?

ওটা দিয়ে আমি মানুষের মনোযোগ আকর্ষণ করি। 

মানুষ কী কাজ করলে তুই ওকে কাবু করে ফেলিস। যখন মানুষ আত্নপ্রশংসায় ডুবে যায় এবং নিজের কাজকে খুব বড় করে দেখে।  আপনাকে আমি তিনটি বিষয়ে হুঁশিয়ার করে দিচ্ছি। 

(১) যে মহিলা আপনার জন্য বৈধ নয়, তাঁর সঙ্গে নির্জনে থাকবেন না। কারণ যখন কোনও মানুষ না- মাহরম মহিলার সঙ্গে নির্জনে থাকে, সেই সময় আমিও সেখানে উপস্থিত থাকি এবং তাঁদেরকে পাপ কাজে জড়িয়ে দিয়ে তবেই ছাড়ি।   

(২) আল্লাহর সঙ্গে আপনি কোনও অঙ্গীকার করলে তা পূরন করবেন। কেননা যে মানুষ আল্লাহর কাছে অঙ্গীকার করে, আমি তাঁর পিছনে লেগে যাই এবং শেষ পর্যন্ত তাঁর অঙ্গীকার ভঙ্গ করিয়েই ছাড়ি। 

(৩) আর আপনি যখন দান-খয়রাতের জন্য টাকা পয়সা বের করবেন, তা অবশ্যই খরচ করবেন। কেননা, যে ব্যক্তি দান-  খয়রাতের জন্য টাকা পয়সা বের করে , আমি তাঁর পিছনে লেগে যাই, যাতে সে ওই টাকা-পয়সাগুলো হকদারদের না দেয়। 

এরপর শয়তান তিনবার ধ্বংস ধ্বংস ধ্বংস বলে চিৎকার করে চলে যায়। 

আর হযরত মূসা (আঃ) ও জেনে যায় শয়তানের বিষয়ে মানুষকে কোন কোন ক্ষেত্রে বিশেষভাবে সর্তক থাকতে হবে। 

পরবর্তী গল্প
হযরত মূসার (আঃ) সাথে শয়তানের সাক্ষাৎ

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত নুহের কাছে শয়তানের তওবার ভাঁওতা

ক্যাটেগরী