হযরত তোফায়েল ইবনে আমর দাওসী (রাঃ ) কর্তৃক আপন কওমকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ১ | আমার কথা
×

 

 

হযরত তোফায়েল ইবনে আমর দাওসী (রাঃ ) কর্তৃক আপন কওমকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ১

coSam ১২২


মুহাম্মাদ ইবনে ইসহাক (রঃ) বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাহার কওমের শত দুর্ব্যহার সত্ত্বেও তাহাদের মঙ্গল কামনায় চেষ্টারত থাকিতেন এবং দুনিয়া আখেরাতের বিপদ আপদ হইতে মুক্তি লাভের পথে তাহাদিগকে আহবান করিতেন। আল্লাহ্‌ তায়ালা যখন তাহাকে কোরাইশদের সর্বপ্রকার ষড়যন্ত্র হইতে নিরাপদ রাখিলেন তখন তাহারা ভিন্ন পথ এই অবলম্বন করিল যে, লোকদিগকে এবং বহিরাগত আরবদিগকে তাহার সম্পর্কে বিভিন্ন প্রকারের ভীতিমূলক কথাবার্তা শুনাইয়া দূরে সরাইয়া রাখিত। হযরত তোফায়েল ইবনে আমর দাওসী (রাঃ) বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মক্কায় অবস্থানকালে তিনি একবার সেখানে গেলেন।

হযরত তোফায়েল (রাঃ) একজন সম্ভ্রান্ত, কবি ও বিচক্ষণ ব্যক্তি ছিলেন। কোরাইশের কতিপয় ব্যক্তি তাহার নিকট আসিয়া বলিল, হে তোফায়েল, তুমি আমাদের শহরে আসিয়াছ। আমাদের মাঝে এই ব্যক্তিকে দেখিতেছ, সে আমাদিগকে বড় মুশকিলে ফেলিয়া দিয়াছে। আমাদের দলের ভিতর বিচ্ছিন্নতা সৃষ্টি করিয়া দিয়াছে। তাহার কথাবার্তা যাদুর ন্যায় পিতা-পুত্র, ভাই ভাই ও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করিয়া দেয়। আমরা তোমার ও তোমার কওমের মধ্যে সেই বিভেদ সৃষ্টি হইবার আশঙ্কা করিতেছি যাহা আমাদের মধ্যে সৃষ্টি হইয়াছে। কাজেই তুমি তাহার সহিত কথা বলিও না এবং তাহার কোন কথা শুনিও না।

হযরত তোফায়েল (রাঃ) বলেন, তাহারা আমাকে এই ব্যাপারে ক্রমাগত এত অধিক বুঝাইল যে, শেষ পর্যন্ত আমি সিদ্ধান্ত করিলাম যে, তাহার কোন কথা শুনিব না এবং তাহার সহিত কথাও বলিব না। এমন কি অনিচ্ছা সত্ত্বেও তাহার কোন কথা আমার কানে পৌছিয়া যায় কিনা, এই ভয়ে সকালবেলা মসজিদে যাওয়ার সময় তুলা দ্বারা কান বন্ধ করিয়া লইলাম।

হযরত তোফায়েল (রাঃ) বলেন, সকালবেলা মসজিদে যাইয়া দেখিলাম রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কা'বা শরীফের নিকট দাঁড়াইয়া নামায পড়িতেছেন। আমি তাহার নিকট যাইয়া দাড়াইলাম। এত সতর্কতা সত্ত্বেও আল্লাহ্‌ তায়ালা তাহার কিছু কথা আমাকে শুনাইয়াই দিলেন। আমার কাছে তাহা অতি উত্তম মনে হইল। মনে মনে বলিলাম, আমার মা পুত্রশোকে কাঁদুক, আমি একজন বিচক্ষণ কবি, এমন নহি যে, ভালমন্দের তফাৎ করিতে পারি না। এই ব্যক্তির কথা শুনিতে আমার বাঁধা কিসের? যদি ভাল কথা হয় কবুল করিব, আর যদি খারাপ হয় পরিত্যাগ করিব।

সূত্রঃ হায়াতুস সাহাবা

হযরত তোফায়েল ইবনে আমর দাওসী (রাঃ ) কর্তৃক আপন কওমকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ২ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পরবর্তী গল্প
হযরত তোফায়েল ইবনে আমর দাওসী (রাঃ ) কর্তৃক আপন কওমকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ২

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত আমর ইবনে মুররাহ জুহানী (রাঃ) কর্তৃক নিজ কওম কে দাওয়াত প্রদান – শেষ পর্ব

ক্যাটেগরী