হযরত ওমায়ের ইবনে ওহব জুমাহী (রাঃ ) এর দাওয়াত প্রদান ও তাহার ইসলাম গ্রহণ – ১ম পর্ব | আমার কথা
×

 

 

হযরত ওমায়ের ইবনে ওহব জুমাহী (রাঃ ) এর দাওয়াত প্রদান ও তাহার ইসলাম গ্রহণ – ১ম পর্ব

coSam ২৫৩


হযরত ওরওয়া ইবনে যুবাইর (রাঃ) বলেন, বদরযুদ্ধে পরাজিত হইবার কিছুদিন পর ওমায়ের ইবনে ওহব জুমাহী সফওয়ান ইবনে উমাইয়ার সহিত কাবা শরীফের হাতীমে বসিয়াছিলেন। কোরাইশী শয়তানদের মধ্যে ওমায়ের ইবনে ওহব ছিলেন একজন বড় শয়তান এবং রাসূল (সাঃ) ও সাহাবায়ে কেরাম (রাঃ)দের প্রতি নির্যাতনকারীদের অন্যতম। মক্কায় থাকাকালীন মুসলমানগণ তাহার পক্ষ হইতে বহু নির্যাতন সহ্য করিয়াছেন। তাহার ছেলে ওহব ইবনে ওমায়ের বদরে মুসলমানদের হাতে বন্দী হইয়াছিলেন। (হাতীমে বসিয়া) ওমায়ের ইবনে ওহব বদরের কালিব নামক কূপের আলোচনা করিলেন। (যুদ্ধশেষে সত্তরজন কাফেরের লাশ উহার ভিতর নিক্ষেপ করা হইয়াছিল।)

সফওয়ান বলিলেন, খোদার কসম, এই সকল লোকদের (নিহত হইবার) পর আর জীবনে কোন স্বাদ নাই। ওমায়ের বলিলেন, তুমি সত্য বলিয়াছ। খোদার কসম, যদি আমার কিছু ঋণ যাহা পরিশোধ করিবার মত ব্যবস্থা বর্তমানে আমার কাছে নাই, আর এই সন্তান-সন্ততি যাহাদের ব্যাপারে আমার অবর্তমানে নষ্ট হইয়া যাইবার আশঙ্কা করিতেছি, না হইত তবে এখনই সওয়ার হইয়া যাইতাম এবং (নাউযুবিল্লাহ ) হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ ) কে কতল করিয়া আসিতাম। আমার ছেলে তাহাদের হাতে বন্দী আছে হেতু আমার সেখানে যাওয়ার একটা অজুহাতও রহিয়াছে।

সফওয়ান ইবনে উমাইয়া সুবর্ণ সুযোগ মনে করিয়া বলিলেন, আমি তোমার ঋণের দায়িত্ব গ্রহণ করিলাম, উহা পরিশোধ করিয়া দিব এবং তোমার সন্তানগণ আমার সন্তানদের সহিত থাকিবে। যতদিন তাহারা বাঁচিয়া থাকিবে আমি সাধ্যমত তাহাদের দেখাশুনা করিব। ওমায়ের বলিলেন, আমাদের এই কথাবার্তা গোপন রাখিব। সফওয়ান বলিলেন, ঠিক আছে, গোপন রাখিব।

অতঃপর ওমাইয়ারের কথামত তাহার তরবারী ধারাইয়া উহাতে বিষ মাখানো হইল। তারপর ওমায়ের রওয়ানা হইলেন এবং মদীনায় আসিয়া উপস্থিত হইলেন। হযরত ওমর ইবনে খাত্তাব (রাঃ) কয়েকজন মুসলমানের সহিত বসিয়া বদরের যুদ্ধে আল্লাহ তায়ালা মুসলমানদিগকে কেমনভাবে বিজয় দান করিয়া সম্মানিত করিয়াছেন এবং শত্রুদের পরাজয় দেখাইয়াছেন, এই বিষয়ে আলাপ আলোচনা করিতেছিলেন।

এমন সময় ওমায়ের ইবনে ওহবকে দেখিলেন, মসজিদের দরজায় উট বসাইয়া নামিতেছেন এবং তাহার গলায় তরবারী ঝুলিতেছে। তিনি বলিয়া উঠিলেন এই কুকুর, খোদার দুশমন ওমায়ের ইবনে ওহাব। নিশ্চয় সে কোন খারাপ উদ্দশ্যে আসিয়াছে। এই সেই ব্যক্তি যে আমাদের মাঝে ফাসাদ সৃষ্টি করিয়াছিল এবং বদরের দিন আমাদের সংখ্যা সম্পর্কে নিজ কওমকে ধারণা দিয়াছিল। অতঃপর তিনি রাসূল (সাঃ)-এর নিকট যাইয়া বলিলেন, হে আল্লাহর নবী, এই যে খোদার দুশমন ওমায়ের ইবনে ওহব গলায় তরবারী ঝুলাইয়া তাহাকে আমার নিকট লইয়া আস।হযরত ওমর (রাঃ) আগাইয়া যাইয়া তাহার তরবারীর রশি সহ জামার বুকে ধরিয়া টানিয়া আনিলেন এবং আনসারী সাহাবীদিগকে বলিলেন, তোমরা যাইয়া রাসূল (সাঃ)-এর নিকট বস এবং এই খবীসের ব্যাপারে হুঁশিয়ার থাকিবে, কারণ ইহার কোন বিশ্বাস নাই। তারপর তিনি তাহাকে রাসূল (সাঃ)-এর নিকট হাজির করিলেন।

সূত্রঃ হায়াতুস সাহাবা

হযরত ওমায়ের ইবনে ওহব জুমাহী (রাঃ ) এর দাওয়াত প্রদান ও তাহার ইসলাম গ্রহণ – ২য় পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন


পরবর্তী গল্প
হযরত ওমায়ের ইবনে ওহব জুমাহী (রাঃ) এর দাওয়াত প্রদান ও তাহার ইসলাম গ্রহণ – ২য় পর্ব

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত বুজাইর (রাঃ ) এর আপন ভাই কা'ব এর নামে পত্র – শেষ পর্ব

ক্যাটেগরী