হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- পর্ব ২ | আমার কথা
×

 

 

হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- পর্ব ২

coSam ৯৭


হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- প্রথম পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন

চমকে উঠলেন মন্ত্রীবর। এ কী কথা! সম্পূর্ণ নিরীহ, নির্দোষ আপনভোলা একটি মানুষ। পার্থিব জীবনে ভোগ-লালসা পরিহার করে যিনি আবিরাম আল্লাহর এবাদত-বন্দেগিতে বিভোর, খলীফাকে এমনটি করতে নিষেধ করলেন। কিন্তু কে শোনে কার কথা! খলীফা অনড়। তিনি তার আদেশ বহাল রাখলেন। অগত্যা মন্ত্রী ইমাম জাফরকে বন্দী করার জন্য বেরিয়ে গেলেন অনিচ্ছা সত্ত্বেও। 

খলিফা তার ভৃত্যকে বলে রাখলেন, জাফর সাদেক যখন দরবারে হাজির হবে, তখন আমার দিকে লক্ষ্য রেখো। আমি যখন আমার মাথার টুপি উঠিয়ে রাখব। আর তখনই এক কোপে তুমি তাঁকে দু’ফাক করে দেবে। কিন্তু যার হাতে মরণ, সেই সার্বভৌম শক্তির অধিকারী আল্লাহর কী আপনার মহিমা?

জাফরকে চোখে মুখে! আসন ছেড়ে উঠে দাঁড়ালেন ক্ষমতাভিমানী খলীফা। এগিয়ে গেলেন সামনের দিকে। তারপর জাফর সাদেককে সম্মানে অর্ভ্যর্থনা জানিয়ে সিংহাসনে এনে বসালেন। কি করতে চেয়েছিল আর কি হয়ে গেল।  মহামান্য শুধু যে নিজের আসন ছেড়ে দিলেন তাই নয়। বসে পড়লেন মহাতাপসের পায়ের তলায়। কুশলাদি জিজ্ঞেস করলেন। বললেন, আপনার কি প্রয়োজন?

সাদেক (রাঃ) উত্তর দিলেন, আমার কোন প্রয়োজন নেই। শুধু প্রার্থনা, ভবিষ্যতে এভাবে আমাকে ডেকে এনে  আমার সাধনার বিঘ্ন ঘটাবেন না।

মনসুর কথা দিলেন। না আর কখনও তা হবে না। অতপরঃ তিনি তাঁকে স্বসম্মানে বিদায় দিলেন। 

ইমাম জাফর সাদেক (রঃ) যেমনি এসেছিলেন সে ভাবে সরবারের কক্ষ পরিত্যাগ করলেন।

কিন্তু তার আধ্যত্মিক শক্তির বৈদ্যুতিক প্রতিক্রিয়া তখনও শেষ হয়নি। বরং তা আরও সক্রীয় হল। তিনি বিদায় নিতেই খলীফা অচৈন্য হয়ে পড়লেন। আর খুব সহজে তিনি জ্ঞান ফিরে পেলেন না। অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে রইলেন দীর্ঘক্ষণ। পর পর তিন ওয়াক্ত নামায কাযা হয়ে গেল। 

আত্মীয়-স্বজন ও সভাদবর্গ হতবাক। কোথা দিয়ে কি হয়ে গেল, কেউ বুঝতে পারলেন না। 

অবশেষে সংজজ্ঞাশূন্য অবস্থায় কেটে গেল। মনসুর চেতনা ফিরে পেলেন। এবার তাঁকে সবাই ছেঁকে ধরলেন। এ কী অবস্থা হুজুর। কি হয়েছিল আপানার?

মনসুর তখন সুস্থ। স্বাভাবিকভাবে বললেন, যখন ইমাম জাফর আমার দরবারে কক্ষে প্রবেশ করলেন, তখন আমি দেখলাম তিনটি সাপ ফণা বিস্তার করে আমাকে বলেছে, দেখ মনসুর, জাফর সাদেকের কোন ক্ষতি করার যদি চেষ্টা কর।  তাহলে আমরা তোমাকে দংশন করব। ঐ ভয়ঙ্কর সাপের ভয়েই এমন সুন্দর ব্যবহার করে তাঁকে বিদায় দিলাম। কিন্তু মনের সে ভয় এখনও কাটেনি। তাই ঐ ভয়ে মূর্ছা যাই।

সূত্রঃ তাযকিরাতুল আউলিয়া

হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- শেষ পর্ব পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পরবর্তী গল্প
হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- শেষ পর্ব

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)- পর্ব ১

ক্যাটেগরী