হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৭ | আমার কথা
×

 

 

হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৭

coSam ১৩৭


হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৬ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

উত্তর এলঃ তুমি নিজের জন্য প্রার্থনা না করে অন্যের জন্য কর। তোমার পক্ষে তাই হবে শোভন ও সুন্দর। আল্লাহ পাক তাঁর প্রিয়জনের কাছে কী চান, এ ঘটনায় তা স্পষ্ট হয়ে যায়। শুধু নিজের মুক্তি নয় মানুষের মুক্তির জন্য আল্লাহর দাসগণ সর্বত্রভাবে সচেষ্ট থাকত।

আপনি রাজ্য ত্যাগ করলেন কেন? তাঁকে প্রশ্ন করা হয়। তিনি বলেন, একদিন রাজ সিংহাসনে বসে আছি। সামনে ছিল একখানি সুদৃশ্য আয়না।

সেদিকে তাকিয়ে দেখতে পেলেন, তিনি কবরের মধ্যে বসে রয়েছেন। কোন সঙ্গী সাথী নেই, একা। সঙ্গে পাথেয়ও কিছু নেই। বিচারককক্ষে বিচারক বসে আছেন। কিন্তু নিজের পক্ষ অবলম্বন করার মত কোন কাগজ পত্র তাঁর কাছে নেই। এই দৃশ্য দেখে তিনি চিরদিনের মত সিংহাসনের মায়া ত্যাগ করেন।

খোরাসান ত্যাগ করলেন কেন? আবারও প্রশ্ন হল। তাঁর জবাব ভিড়ের জন্য। সবাই আসত তাঁর খোঁজ-খবর নিতে। তিনি গতকাল কেমন ছিলেন, আজ কেমন আছেন, এসব জানতে চাইত।

আপনি স্ত্রী গ্রহণ করেন না কেন?

স্ত্রী কি এই উদ্দেশ্যে স্বামী গ্রহণ করে যে, সে অন্ন বস্ত্রহীন ও খালী পায়ে দিন কাটবে? আমার যা অবস্থা তাতে একজন স্ত্রীলোককে কি করে প্রতারণা ও ফাঁকির বেঁধে রাখতে পারি?

এক দরবেশকে পর নিন্দা করতে দেখে তিনি তাঁকে বলেন, আপনি বোধহয় বিনামূল্যে দরবেশী কিনেছেন?

দরবারে অনুতপ্ত হয়ে বললেন, দরবেশী কেউ আবার মূল্যের বিনিময়ে কেনে নাকি?

তিনি আবার জবাব দেন, কেন, আমি তো বলখ রাজ্যের বিনিময়ে দরবেশী লাভ করেছি। আর আমি লাভবানও বটে।

এক ব্যক্তি তাঁকে এক হাজার দেরহাম দিতে গেলেন। তিনি বললেন গরীবের দান আমি গ্রহণ করি না। সে বলল, আমি গরীব নই।

তবে কী ধনী?

জি হ্যাঁ।

তোমার যা আছে, তুমি কী তারও বেশী চাও না?

চাই।

তাহলে তুমি ভিক্ষুক ছাড়া আর কি? দেরহাম ফিরিয়ে নিয়ে যাও। তিনি আরও বললেন, আমি দারিদ্র কামনা করি অথচ আমার কাছে আসে কেবল ধন-সম্পদ। কী বিপদ!

আল্লাহর তরফ থেকে তিনি কল্যাণকর যা কিছু লাভ করতেন, যখন চুপ করতে থাকতে পারতেন না। সে সু-খবর তিনি জোরেসোরে প্রকাশ করতেন।

বলতেন, হে রাজা-বাদশাহগণ সর্বশক্তিমান আল্লাহর অভাবনীয় মহিমা ও শক্তির নিদর্শন দেখে যাও। তাঁর কথা ছিল, যারা রিপুর দাস, তারা সত্যনিষ্ঠ নয়, আর সত্যনিষ্ঠ না হলে আল্লাহর সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন সম্ভব নয়। তিনি বলেন, তাঁরা প্রতি মুহূর্তে আল্লাহর চিন্তায় বিভোর থাকেন। আর যে কোন বিষয় বা বস্তু থেকে জ্ঞান আহরণ করেন।

একদা চলার পথে তিনি একখণ্ড পাথর দেখতে পান। তাতে লেখা ছিল, পাথরখানা তুলে পড়ে দেখ। তিনি পাথর দেখে পড়ে দেখলেন, তাতে লেখা আছে, তুমি যা জান না, তা জানার জন্য কেন চেষ্টা করছ না? তিনি নিজেই এটি বলেছেন। সেই সঙ্গে আরও বললেন, পার্থিব জগতে যা লাভ করা কষ্টকর, মৃত্যু পরবর্তী জীবনে তাই বেশী মূল্যবান।

সূত্রঃ তাযকিরাতুল আউলিয়া

হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৮ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পরবর্তী গল্প
হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৮

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত ইব্রাহীম আদহাম (রঃ) – পর্ব ৬

ক্যাটেগরী