সহনশীলতা | আমার কথা
×

 

 

সহনশীলতা

coSam ৫৬


একদা এক মুসলিম সেনাদলের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন সালমান (রাঃ)। মুসলিম বাহিনী সে এলাকা দখল করে মুসলিম সুশাসন কায়েম করেন। এক জায়গায় কয়েকজন ব্যক্তি উপবিষ্ঠ ছিলেন। একজন আল-কুরআন থেকে সূরা মারইয়াম তিলাওয়াত শুরু করলেন। একজন অমুসলিম তার তিলাওয়াত শুনে হযরত মারইয়াম এবং তার পুত্র হযরত ঈসা  সম্পর্কে অত্যন্ত অশালীন মন্তব্য করেন। এতে মুসলিমগণ অত্যন্ত বিক্ষুব্ধ হল।    

তারা লোকটিকে প্রহার শুরু করে দিল। এক পর্যায়ে তার দেহ থেকে রক্ত ঝরে পড়ল। বহিরাগত লোকটি সালমানের নিকট গেল এবং বিচার প্রার্থনা করল। সুবিবেচনা, ইহসান, ইনসাফ এবং সুবিচারের জন্য সালমানের ছিল খ্যাতি।   

যিনি অধিকারহারা এবং নিজেকে ক্ষুদ্র অনুভব করতেন, তারা তার কাছে গিয়ে ইনসাফ প্রতিষ্ঠার আবেদন জানাতে পারতেন।সালমান (রাঃ) আহত লোকটিকে নিয়ে মুসলিমদের কাছে গেলেন এবং লোকটিকে প্রহারের কারণ জিজ্ঞাসা করলেন। মুসলিমদের মধ্যে একজন বলল- আমরা সূরা মারইয়াম তিলাওয়াত শুনছিলাম।    

আর এই লোকটি বিনা প্ররোচনায় হযরত মারইয়াম এবং তার পুত্র সম্বন্ধে অবমাননা সূচক বক্তব্য পেশ করে। তাদেরকে অপমান বা বেইজ্জতী করেছেন। মুসলিমদের জবাব শুনে সালমান (রাঃ) অত্যন্ত বিরক্ত হলেন।  অমুসলিমদের মধ্য হতে যারা জিম্মী, নিরাপত্তা প্রাপ্ত তাদেরকে সম্মান ও সমীহ করার নির্দেশ দিলেন এবং সবুরের আহ্বান জানালেন।    

তিনি তাদেরকে কুরআনের আয়াত স্মরণ করিয়ে দিলেন। তিনি পাঠ করলেন, “তাদেরকে গালিগালাজ কর না যারা আল্লাহ ভিন্ন অন্যের উপাসনা করে। যদি তা কর, তারা ঘৃণা এবং অনাচারের কারণে আল্লাহর অবমাননা করবে।  

(সূরা- আনআম, ৬১:১০৮)  

সুত্রঃ ক্রিতদাস থেকে সাহাবী  

পরবর্তী গল্প
নিয়মিত সালাত

পূর্ববর্তী গল্প
মধ্যমপন্থা

ক্যাটেগরী