রাসূলুল্লাহ (স)-এর মিরাজ | আমার কথা
×

 

 

রাসূলুল্লাহ (স)-এর মিরাজ

coSam ১২৪


নবুয়াতের দ্বাদশ বর্ষের সাতাশে রজব তারিখ অর্থাৎ ছাব্বিশ তারিখ দিবাগত সোমবার রাতে মি'রাজ সংঘটিত হয়েছে। এটাই হাফেয আবদুল গণির অভিমত এবং এ অভিমত অনুসারেই আমল চলে আসছে। কারো কারো মতে হিজরতের এক বছর সতর মাস পূর্বে এ ঘটনা সংঘটিত হয়েছিল।

ইমাম জুহরীর মতে এ ঘটনা নবুয়াতের পঞ্চম বর্ষে হয়েছিল। মাওলানা আশেকে এলাহী কর্তৃক লিখিত তারিখে ইসলামে উল্লেখ করা হয়েছে তখন রাসূলুল্লাহ (স) এর বয়স ৫১ বছর ৮ মাস ২০ দিন। আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআনে সূরায়ে বণী ইসরাইলের মধ্যে এ মিরাজের ঘটনার প্রতি ইঙ্গিত করে ইরশাদ করেন-

পবিত্র সেই সত্তা যিনি তাঁর বান্দাহর রাতের সামান্য অংশে মসজিদে হারাম থেকে মসজিদে আকসা পর্যন্ত ভ্রমন করিয়াছিলেন, যার চার পাশে আমি বরকত দান করেছি। এ জন্য যে, আমি তাকে আমার নিদর্শনসমূহের কিছু নিদর্শন দেখাব; নিশ্চয় তিনি সর্বশ্রোতা সর্বদ্রষ্টা।

মসজিদুল হারাম থেকে মসজিদে আকসা পর্যন্ত ভ্রমন অকাট্য দলিল দ্বারা প্রমানিত। পবিত্র কোরআনে এ ভ্রমণকে ইসরা বলা হয়েছে। ইসরা শব্দের অর্থ রাতে ভ্রমণ করান, আর লাইলাম বলে রাসূলুল্লাহ (স) কে সমস্ত তার নয়; বরং রাতের কিছু অংশেই ভ্রমণ করানো বুঝান হয়েছে। ইসরা রাতের ভ্রমন, যা মসজিদুল হারাম থেকে মসজিদুল আকসা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছে-তা কোরআন দ্বারা প্রমাণিত। অতএব মি'রাজের এ অংশ অস্বীকার করা কুফরী।

মসজিদুল আকসা থেকে আসমান, আরশ প্রভৃতি ভ্রমণ হাদীস দ্বারা প্রমানিত; যে মি'রাজের এ অংশ অস্বীকার করবে সে ফাসেক বিদয়াতী বলে সাব্যস্ত হবে। অর্থাৎ মক্কা শরীফ হতে বায়তুল মুক্কাদ্দাস পর্যন্ত এ অংশ ইসরা এবং বায়তুল মুকাদ্দাসের পরে আসমান, আরশ প্রভৃতি ভ্রমণ মি'রাজ নামে অভিহিত হয়েছে। পরবর্তীকালে এ ভ্রমণ মি'রাজ বলেই অভিহিত হতে থাকে।

 

পরবর্তী গল্প
মি'রাজ সম্পর্কিত আলোচনা

পূর্ববর্তী গল্প
আবদুল আশহাল সম্প্রদায়ের সকলের ইসলাম গ্রহণ

ক্যাটেগরী