যাদেরকে ইমাম বানানাে মাকরূহ | আমার কথা
×

 

 

যাদেরকে ইমাম বানানাে মাকরূহ

coSam ৪৩


যাদেরকে ইমাম বানানাে মাকরূহঃ

যাদেরকে ইমাম বানানাে এবং যাদের পিছনে নামায পড়া মাকরূহ তারা হলঃ।
১। ফাসেক, অর্থাৎ, যে প্রকাশ্যে গােনাহ করে বেড়ায়। এরূপ লােককে ইমাম  নিযুক্ত করা মাকরূহ তাহরীমী।
২। বেদআতীকে ইমাম বানানাে মাকরূহ তাহরীমী। অবশ্য ফাসেক ও বেদআতী ব্যতীত উপস্থিত লােকদের মধ্যে যদি অন্য কোন উপযুক্ত ব্যক্তি থাকে অথবা তাকে ইমাম নিযুক্ত না করলে বা পূর্বে নিযুক্ত হয়ে রয়েছে এখন তাকে বরখাস্ত করতে গেলে ফ্যাসাদ ও কলহ সৃষ্টির আশংকা থাকে তাহলে তার পিছনে নামায পড়া যাবে- এতে মুসল্লীদের গােনাহ হবে না। তবে যাদের কারণে এ ধরনের নিয়ােগ দিতে হল বা বরখাস্ত করা গেল না।
তীরা দায়ী হবে।   
৩। অন্ধ বা রাতকানাকে ইমাম বানানাে মাকরূহ তানযীহী। তবে এরূপ লােক যােগ্য হলে এবং পাক নাপাক সম্বন্ধে সতর্ক হয়ে থাকলে এবং তার ইমামতিতে কারও আপত্তি না থাকলে তার ইমামতী মাকরূহ নয়।   
৪। ওলাদুযযিনা (যেনার সন্তান)-কে ইমাম বানানাে মাকরূহ তানযীহী।   
অবশ্য এরূপ ব্যক্তি ইলম ও তাকওয়ার অধিকারী হয়ে থাকলে এবং তার ইমামতীতে মুসল্লীদের আপত্তি না থাকলে তাকে ইমাম বানানাে মাকরূহ হবে না।     
৫। যে সুশ্রী নব্য যুবকের এখনও দাড়ি ভালমত ওঠেনি, তাকে ইমাম বানানাে মাকরূহ (তানযীহী) যদি ফেতনার আশংকা থাকে। ফেতনার আশংকা না থাকলে মাকরূহ নয়।    

সূত্রঃ আহকামে যিন্দেগী

পরবর্তী গল্প
জুমুআর নামায

পূর্ববর্তী গল্প
ইমাম নিযুক্ত করার নীতি ও মাসায়েল

ক্যাটেগরী