বিশপের অপকর্ম | আমার কথা
×

 

 

বিশপের অপকর্ম

coSam ৩৯


সালমান (রাঃ) খ্রীষ্ট ধর্মের বিবিধ ধমীয় প্রক্রিয়ায় ওৎপ্রোত ভাবে জড়িয়ে পড়লেন। কিন্তু তার অদৃষ্টে ছিল হতাশা। কারণ গীর্জার বিশপ ছিলেন অত্যন্ত দুর্নীতিগ্রস্ত। তিনি গীর্জায় বক্তৃতা কালে খ্রীষ্ট ধর্মের অনুসারীদেরকে ধর্মীয় উদ্দেশ্যে অর্থ দানে উদ্বুদ্ধ করতেন।

বিনিময়ে তাদেরকে স্বর্গের আশ্বাস দিতেন। অনুসারীরা যখন ধর্মীয় উদ্দেশ্যে অর্থ অনুদান করত তার একটি বড় অংশ বিশপ লুকিয়ে ফেলতেন। 

দরিদ্র এবং অভাবীদেরকেও গুদামজাত সম্পদ হতে বঞ্চিত করতেন। এ পদ্ধতিতে বিশপ প্রচুর বিত্ত সম্পদের মালিক হয়ে বসেন।

বিশপ মারা যাওয়ার পর বহু খ্রীষ্টান তাকে সমাধিস্থ করতে এল। বিশপের কীর্তি কাহিনীর অনেক কিছুই সালমান (রাঃ) খ্রীষ্ট ধর্মের অনুসারীদেরকে অবহিত করলেন। সে যে অভাবী ও দরিদ্রদেরকে বঞ্চিত করে বিত্ত সম্পদ পুঞ্জিভূত করেছিল তারও কিছু কিছু কাহিনী তাদেরকে অবহিত করলেন।

খ্রীষ্টানরা বিশপের সংগৃহীত সোনা-দানার উৎস আবিষ্কারে উৎসাহিত হল। সালমান রোঃ) বিশপের পুর্জিভূত সোনা-দানার উৎসের সন্ধানও দিল। তারা সাতটি বড় কলসি বা মটকায় ভরা স্বর্ণ রৌপ্যের সন্ধান পেয়ে কিংকর্তব্য বিমূঢ় হল। বিশপের এ ধরনের চিত্রে গীর্জার পূজারী ও ধর্মের অনুসারীরা অগ্নিশর্মা হয়ে উঠলো।  

তারা তাকে কবর দিতেও অনিচ্ছা প্রকাশ করল। তাকে ক্রুশ বিদ্ধ করে শূলীতে চড়িয়ে রেখে দিল এবং তার দিকে প্রতিদিন প্রস্তর নিক্ষেপ করতো।

সালমান (রাঃ) বিশপের উত্তরসূরীর খেদমতে নিয়োজিত হল। এ বিশপ ছিলেন স্বাত্তিক এবং ত্যাগী পুরুষ। অর্থের প্রতি তার কোন মোহ ছিল না। তার মোহ ছিল পরকাল। 

তাই দিনরাত প্রার্থনা এবং বিবিধ আচার অনুষ্ঠানে নতুন বিশপ ব্যস্ত থেকে কালাতিপাত করতেন। বিশপের চারিত্রিক শুণাবলী ও মাধূর্যে সালমান (রাঃ) মোহিত হল এবং বিশপের সান্নিধ্যে এবং সেবায় সালমান (রাঃ) নিয়োজিত রইল বিশপের মহা প্রয়ান পর্যন্ত।

পরবর্তী গল্প
পণ্ডিত খেতাব

পূর্ববর্তী গল্প
খ্রীষ্টান কাফেলার সঙ্গে দেশ ত্যাগ

ক্যাটেগরী