বিল্লালের ইসলাম গ্রহণ | আমার কথা
×

 

 

বিল্লালের ইসলাম গ্রহণ

coSam ৪৪


এক বর্ণনায় হযরত বিলাল (রাঃ) কে ৮ম মুসলিম বলা হয়েছে। আটজন হলেন (১) হযরত খাদিজা, (২) আবু বকর,(৩) আলী, (৪) আম্মার (৫) উসমা, (৬) সুহাইব, (৭) মিকদাদ, (৮) বিলাল। (আব্বাস মাহমুদ আল আক্কাদঃ হযরত বিলাল; ইংরেজি পুস্তক; পৃঃ নং-২২। এ বর্ণনায় হযরত যায়েদ বিন হারিছাহ, আবু জর গিফারী, খাব্বাস ইবনে আল আরাতের নাম নেই।

ইসলাম গ্রহণের সময় তাঁর মনিব ছিল উমাইয়া ইবনে খালফ। সম্ভবত আবু জাহলের এক আত্মীয়ার কাছে থেকে উমাইয়া বিলালকে ক্রয় করে।

ইসলাম গ্রহণের প্রতিক্রিয়ার তাঁর প্রভু উমাইয়া ইবনে খালফের নির্যাতন বিলালের উপর ছিল নিষ্ঠুর এবং ভয়াবহ।

চাবুকাঘাত তৌহিদী ধর্ম গ্রহণ করেছে কিনা উমাইয়্যা জিজ্ঞাসা করায় হযরত বিলাল (রাঃ) অকপেট তা স্বীকার করেন। অকথ্য ভাষায় বকাবকি, ধমক ধমকি করেও উমাইয়ার চিত্ত প্রশাস্তি হয়নি।

বরং গালা-গালির পর শুরু হয় চাবুকের আঘাত। নির্মত আঘাতে হযরত বিলালের দেহের চর্ম বহু স্তরে এমনভাবে ফেটে যায় যে, সারাটি দেহ রক্তাক্ত হয়। আঘাতে চৌচির হযরত বিলাল (রাঃ) রক্তমাখা গাত্র দেহ ভয়াবহ এবং মর্মন্তদ রুপ ধারণ করে। অর্থ মৃত দেহটি টেনে হেচড়ে আবর্জানাপূর্ণ কক্ষে আবন্ধ করে রাখা হয়।

কয়েক ঘন্টা পর কক্ষ থেকে বের করে এনে তাঁকে পুনরায় বেত্রাঘাত করা হয় এবং নতুন ধর্মমত ত্যাগ করে লাত, মানাত, উযযা, হুবল এর অনুসারী বলে ঘোষনা করতে বলা হয়।

কিন্তু হযরত বিলাল (রাঃ) ছিলেন  নিরুত্তর। তখন তাঁকে কিরুপ অত্যাচার হবে তারও বর্ণনা দেয়া হয়।

সুত্রঃ ক্রিতদাস থেকে সাহাবী,

পরবর্তী গল্প
উত্তপ্ত বালুকার উপর পাথর চাপা

পূর্ববর্তী গল্প
নির্যাতীত হযরত বিলাল (রাঃ)

ক্যাটেগরী