প্রকৃত মানুষ | আমার কথা
×

 

 

প্রকৃত মানুষ

coSam ১০৪


হযরত আবুল কাশেম জুনায়েদ (রহঃ) একবার আমি স্বপ্নযোগে ইবলিশকে উলঙ্গ অবস্থায় দেখে বললাম, এভাবে মানুষের সামনে আসতে তোমার লজ্জা করে না?

সে জবাব দিল- তুমি যাদেরকে মানুষ বলছ তারা যদি প্রকৃত হত, তবে আমি তাদের সাথে শিশুদের মত খেলা করতে পারতাম না। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তাহলে প্রকৃত মানুষ কারা? সে বলল, অমুক মসজিদে একদল মানুষ আল্লাহর ইবাদত করছে, তারাই প্রকৃত মানুষ। তাদের পরহেজগারী দেখে আমি জ্বলে পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছি। কেননা, আমি যখনই তাদেরকে ধোঁকা দেবার পরিকল্পনা করি, সাথে সাথে আল্লাহ তায়ালা তদেরকে সতর্ক করে দেন।

হযরত আবুল কাশেম জুনায়েদ (রহঃ) বলেন, ঘুম থেকে জাগার পর আমি সে মসজিদে গিয়ে দেখলাম, সেখানে তিন ব্যক্তি মাথায় ছেড়া নেকড়া জড়িয়ে বসে আছে। আমার উপস্থিতি টের পেয়ে এক ব্যক্তি বলে উঠল, হে আবুল কাশেম! শয়তানের কথায় কখনো কান দিও না।

অপর এক ঘটনার উল্লেখ করে হযরত আবুল কাশেম জুনায়েদ (রহঃ) বলেন, একবার বাগদাদের এক মসজিদে বসে আমি এক জানাজার নামাজের অপেক্ষা করছিলাম। এমন সময় দেখতে পেলাম, এক ফকীর ভিক্ষা করছে। তার চোখে মুখে ইবাদতের ছাপ লেগে ছিল। এমন সময় আমি মনে মনে বললাম, এ ব্যক্তি যদি মানুষের নিকট হাত না পেতে কোন কাজ করে অন্ন সংস্থান করত, তবে কতই না ভাল হত?

হযরত আবুল কাশেম জুনায়েদ (রহঃ) বলেন, সেদিন রাতে আমি স্বপ্নে দেখলাম, একটি খাঞ্জা বিছিয়ে তাতে সে ফকীরকে বসিয়ে আমাকে বলা হল- তার গোশত খাও। কারণ তুমি তার গীবত করেছিলে। অতঃপর আমাকে সেই ফকীরের নিকট গিয়ে দেখলাম, এক ব্যক্তি পানিতে সবজি ধুইছে আর পানির সাথে সেই শাক পাতাগুলি ভেসে যাচ্ছে ফকীর তা উদ্ধার করছে।

আমি নিকটে গিয়ে তাকে সালাম করলাম। সে সালামের জবাব দিয়ে বলল, আর কখনো মানুষের গীবত ও দোষ চর্চা করবে? আমি বললাম- না, আর কখনো এরূপ করব না। ফকীর বলল, আল্লাহ পাক তোমাকে এবং আমাকে মাফ করুন।

পরবর্তী গল্প
এক পেয়ালা দুধে বরকত

পূর্ববর্তী গল্প
এক কুর্দী ডাকাতের তওবা

ক্যাটেগরী