নুনের দাম | আমার কথা
×

 

 

নুনের দাম

coSam ৩৯৫


ইরান এক সুন্দর দেশ।

সেই দেশের এক সম্রাট নাম তার নওশের।প্রজাদের তিনি ভালোবাসেন। সত্য ও সুন্দরের কথা বলেন।ন্যায়ভাবে শাসন করেন রাজ্য। চারদিকে তার সুনাম । সকলেই সম্রাট নওশেরের প্রশংসায় পঞ্চমুখ । সম্রাট একদিন সদলবলে শিকারে গিয়েছেন। বনের এদিকে ঘুরে বেড়ান, ওদিকে ঘুরে বেড়ান। চারদিকে চমতকার এক আনন্দ-উৎসব। দুপুরবেলা, ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত হয়ে নওশের বিশ্রাম নিতে বসলেন। এখন খাওয়াদাওয়ার সময় । সম্রাট নওশের ক্ষুধার্ত ।

তার সঙ্গীদেরও সেই অবস্থা । খেতে বসে দেখা গেল, খাবারদাবার সব ঠিক আছে, কিন্তু লবণ আনা হয়নি ভুলে । একজন সিপাই সঙ্গে সঙ্গে ঘোড়া ছুটিয়ে দিল লবণের সন্ধানে । সম্রাট তাকে বললেন কোথায় যাচ্ছ তুমি? বনের ধারে কোনো বাড়িতে যাব । দেখি সেখানে লবণ পাওয়া যায় কিনা । যেখানেই যাও-না কেন, যার কাছ থেকেই লবণ আনো-না কেন, পয়সা দিয়ে কিনে এনো কিন্তু। সিপাই ঘোড়া নিয়ে ছুটল । খুব তাড়াতাড়ি লবণ জোগাড় করে ফেলল সে। ফিরে এল আরো দ্রত। মুখে তার সার্থকতার হাসি । সম্রাট তখনও খাওয়া শুরু করেননি ।

সিপাই বলল-বাদশাহ নামদার, লবণ সংখহ করে এনেছি। সম্রাট জিজ্ঞেস করলেন পয়সা দিয়ে কিনে এনেছ তো? যার কাছ থেকে লবণ এনেছ তাকে পয়সা দিয়েছ তো? এমনি এমনি চেয়ে নিয়ে আসোনি তো লবণ? নওশের ব্যাকুল হয়ে তা জানতে চাইলেন। এই দেখে এক উজির আজম মৃদু হেসে বললেন সম্রাট, আপনি এই সামান্য ব্যাপার নিয়ে এত মাথা ঘামাচ্ছেন কেন? বারবার আপনি জানতে চাইছেন পয়সা দিয়ে কিনে আনা হয়েছে কিনা । কারো কাছ থেকে যদি একটু লবণ এমনি এমনি নিয়েই আসা হয় তাতে ক্ষতি কী? সম্রাট বললেন না, না, সেটা হওয়া উচিত নয়।

আমি যদি অন্যায়ভাবে কারো গাছ থেকে একটা আপেল নিই তবে দেখা যাবে আমার সঙ্গীরা গাছটাই উপড়ে দিয়েছে । আমি যদি সিপাইকে বলি, যাও বিনামূল্যে একটা ডিম নিয়ে এসো ও গিয়ে তাহলে কারো বাড়ি থেকে মুরগিসুদ্ধ ধরে আনবে । এটা কি ঠিক হবে?

সকলেই মাথা ঝাঁকালেন। না, এটা করা ঠিক হবে না। বাদশাহ নওশের বললেন সম্রাট হয়ে অন্যায় করা উচিত নয় । বাদশাহ যদি ক্ষমতাবান সম্রটকে থাকতে হবে আরো সচেতন | আমি শুধু সেটুকুই চেষ্টা করি। দরবারের সকলেই সম্রাটের প্রশংসায় শতমুখ হয়ে উঠল । আমাদের মহান সম্রাটের জয় হোক।


পরবর্তী গল্প
ভোগ-বিলাসের পরিণতি

পূর্ববর্তী গল্প
শ্রেষ্ট অলিদের মিলন মেলা

ক্যাটেগরী