নবী কারীম (সাঃ ) ও হযরত আবু বকর (রাঃ ) এর হিজরতের বিবরণ – পর্ব ১ | আমার কথা
×

 

 

নবী কারীম (সাঃ ) ও হযরত আবু বকর (রাঃ ) এর হিজরতের বিবরণ – পর্ব ১

coSam ৮১


হযরত ওরওয়া (রাঃ) হইতে বর্ণিত আছে যে, হজ্জের পর রাসূল (সাঃ) যিলহজ্জের বাকী দিনগুলি, মহররম ও সফর মাস মক্কায় অবস্থান করিয়াছিলেন। কোরাইশের মুশরিকগণ তখন পরিস্কারভাবে বুঝিতে পারিয়াছিল যে, রাসূল (সাঃ) মক্কা হইতে বাহির হইয়া যাইবেন এবং আল্লাহ তায়ালা তাহাঁর জন্য মদীনায় হেফাজত ও আশ্রয়স্থল নির্ধারিত করিয়া দিয়াছেন। তাহারা ইহাও জানিত পারিয়াছিল যে, মদীনার আনসারগণ ইসলাম গ্রহণ করিয়াছেন এবং মুহাজিরগণ সেখানে হিজরত করিয়া যাইতেছেন।

অতএব তাহারা রাসূল (সাঃ)-এর বিরুদ্ধে শেষ সিদ্ধান্ত এই গ্রহণ করিল যে, তাঁহাকে ধরিয়া (নাউযুবিল্লাহ) কতল করিয়া দিবে অথবা বন্দী করিয়া রাখিয়া বা যমীনের উপর হেঁচড়াইবে বলিয়াছে এই ব্যাপারে বর্ণনাকারী আমর ইবনে খালেদ সন্দেহ প্রকাশ করিয়াছেন অথবা তাঁহাকে মক্কা হইতে বাহির করিয়া দিবে বা বাঁধিয়া রাখিবে। আল্লাহ তায়ালা তখন নিম্নবর্ণিত আয়াতের মাধ্যমে নবী কারীম (সাঃ)কে তাহাদের এই ষড়যন্ত্রের বিষয়ে অবহিত করিয়া দিলেন।

وَإِذْ يَمْكُرُ بِكَ الَّذِينَ كَفَرُوا لِيُثْبِتُوكَ أَوْ يَقْتُلُوكَ أَوْ يُخْرِجُوكَ ۚ وَيَمْكُرُونَ وَيَمْكُرُ اللَّهُ ۖ وَاللَّهُ خَيْرُ الْمَاكِرِينَ

অর্থঃ স্মরণ করুন যখন কাফেরগণ ষড়যন্ত্র করিতেছিল আপনাকে বন্দী অথবা হত্যা করিবার উদ্দেশ্যে, অথবা বাহির করিয়া দিবার জন্য, তখন তাহারা পরিকল্পনা করিতেছিল এবং আল্লাহও পরিকল্পনা করিতেছিলেন। বস্তুতঃ আল্লাহ শ্রেষ্ঠ পরিকল্পনাকারী।

রাসূল (সাঃ) যেদিন হযরত আবু বকর (রাঃ) এর ঘরে আসিলেন সেদিনই জানিতে পারিলেন যে, তিনি যখন রাত্রে বিছানায় শয়ন করিবেন তখন কাফেরগণ তাঁহার উপর আক্রমণ করিবে। সুতরাং তিনি হযরত আবু বকর (রাঃ)কে সঙ্গে লইয়া রাতের অন্ধকারে মক্কা হইতে বাহির হইলেন এবং সওর পাহাড়ের গুহায় যাইয়া উঠিলেন। উহা সেই গুহা যাহা আল্লাহ তায়ালা কোরআন মাজিদে উল্লেখ করিয়াছেন।

হযরত আলী (রাঃ) রাসূল (সাঃ)-এর বিছানায় শয়ন করিলেন, যাহাতে গুপ্তচরগণ তাঁহার গমন সম্পর্কে বুঝিতে না পারে, বরং তাহারা এই ধারণা করিতে থাকে যে, তিনি বিছানায় শায়িত আছেন। কোরাইশের মুশরিকগণ রাতভর ঘোরাফিরা ও পরামর্শ করিতে লাগিল যে, বিছানায় শায়িত ব্যক্তির উপর অতর্কিত হামলা করিয়া তাহাকে বাঁধিয়া ফেলিব। রাতভর এই সকল জল্পনা-কল্পনা করিতে করিতে তাহাদের সকাল হইয়া গেল। তাহারা কোন সিদ্ধান্তে পৌঁছিতে পারিল না। সকালবেলা দেখিল, হযরত আলী (রাঃ) বিছানা হইতে উঠিতেছেন। তাহারা নবী কারীম (সাঃ) সম্পর্কে তাহারা জিজ্ঞাসা করিলে তিনি জবাব দিলেন, এই ব্যাপারে তাহার কিছুই জানা নাই। মুশরিকগণ তখন বুঝিতে পারিল যে, তিনি চলিয়া গিয়াছেন। সুতরাং তাহারা সওয়ারীতে আরোহণপূর্বক চতুর্দিকে ছড়াইয়া পড়িল এবং তাঁহাকে তালাশ করিতে লাগিল।

আশে-পাশে ঝর্ণার ধারে বসতিগুলিতে সংবাদ পাঠাইল যে, তাহারা যেন নবী কারীম (সাঃ)কে গ্রেফতার করে। এই কাজের উপর বিরাট পুরষ্কারেরও ঘোষণা করা হইল।

সূত্রঃ হায়াতুস সাহাবা

নবী কারীম (সাঃ ) ও হযরত আবু বকর (রাঃ ) এর হিজরতের বিবরণ – পর্ব ২ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পরবর্তী গল্প
নবী কারীম (সাঃ ) ও হযরত আবু বকর (রাঃ ) এর হিজরতের বিবরণ – পর্ব ২

পূর্ববর্তী গল্প
খন্দকের যুদ্ধে শীত, ক্ষুধা ও ভয়-ভীতি সহ্য করা - শেষ পর্ব

ক্যাটেগরী