নবী করীম (সাঃ) কর্তৃক দুইয়ের অধিক জামাতকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ১ | আমার কথা
×

 

 

নবী করীম (সাঃ) কর্তৃক দুইয়ের অধিক জামাতকে দাওয়াত প্রদান - পর্ব ১

coSam ৮৪


হযরত ইবনে আব্বাস (রাঃ) হইতে বর্ণিত আছে যে, রাবীআর দুইপুত্র-ওতবাহ ও শাইবাহ, আবু সুফিয়ান ইবনে হারব, বনু আব্দিদ দারের এক ব্যক্তি, বনুল আসাদের আবুল বাখতারী, আসওয়াদ ইবনে আবদুল মুত্তালিব ইবনে আসাদ, যামআহ ইবনে আসওয়াদ, ওলীদ ইবনে মুগীরাহ, আবু জেহেল ইবনে হেশাম, আবদুল্লাহ ইবনে আবি উমাইয়াহ, উমাইয়াহ ইবনে খালাফ, আস ইবনে ওয়ায়েল ও হাজ্জাজ সাহমীর দুই পুত্র-নুবাইহ ও মুনাব্বাহ ইহারা সকলে সূর্যাস্তের পর কা’বার পিছনে সমবেত হইল। নিজেদের মধ্যে পরামর্শ করিবার পর তাহারা এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিল যে, তোমরা (হযরত) মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) কে ডাকাইয়া আনিয়া তাহার সহিত আলাপ আলোচনা কর। তাহার সহিত এমনভাবে বিতর্ক কর যাহাতে লোকেরা বুঝিতে পারে যে, তোমরা পূর্ণ চেষ্টা করিয়াছ, কোনরূপ ত্রুটি কর নাই।

অতঃপর নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নিকট লোক পাঠানো হইল এবং বলা হইল যে, আপনার কাওমের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিগণ আপনার সহিত আলাপ আলোচনা করার জন্য সমবেত হইয়াছে। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ধারণা করিলেন, তাহাদের মনে হয়ত ইসলাম গ্রহণের আগ্রহ হইয়াছে। কারণ তিনি তাহাদের ইসলাম গ্রহণের প্রতি অত্যন্ত আগ্রহী ছিলেন। মনে প্রাণে ইহাই

চাহিতেন যে, তাহারা হেদায়াত পাইয়া যাক। তাহাদের কষ্ট ও ধ্বংস তাহার জন্য দুঃসহনীয় ছিল। সুতরাং তিনি দ্রুত মজলিজে আসিয়া তাহাদের নিকট বসিলেন। তাহারা বলিল, হে মুহাম্মাদ, আমরা আপনাকে লোক পাঠাইয়া এইজন্য ডাকাইয়াছি যাহাতে আপনাকে বুঝানোর ব্যপারে আমাদের চেষ্টার কোনরূপ ত্রুটি না থাকে এবং লোকেরাও বুঝিয়া লয় যে, আমরা এই ব্যাপারে সর্বাত্মক চেষ্টা করিয়াছি। খোদার কসম, আপনি আপনার কাওমের মধ্যে এমন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করিয়াছেন যাহা আরবের মধ্যে আর কেহ করিয়াছে বলিয়া আমাদের জানা নাই।

আমাদের বাপ-দাদাদের নিন্দা করিয়াছেন, তাহাদের ধর্মকে খারাপ বলিয়াছেন, তাহাদিগকে বেঅকুপ বলিয়াছেন, তাহাদের মাবুদ্গুলির নিন্দা করিয়াছেন, তাহাদের ঐক্যে ফাটল ধরাইয়া দিয়াছেন এবং এমন কোন খারাবি অবশিষ্ট নাই যাহা আমাদের ও আপনাদের মাঝে আপনি আনয়ন করেন নাই। আপনার এই সকল কথার উদ্দেশ্য যদি ধনসম্পদের প্রত্যাশা হইয়া থাকে তবে আমরা আপনার জন্য এত পরিমাণ ধনসম্পদ জমা করিয়া দিব যে, আপনি আমাদের মধ্যে সর্বাপেক্ষা ধনবান হইয়া যাইবেন।

যদি আপনি সরদারীর প্রত্যাশী হন তবে আমরা আপনাকে আমাদের সরদার বানাইয়া লইব। আর যদি আপনি বাদশাহী চাহিয়া থাকেন তবে আমরা আপনাকে আমাদের বাদশাহ বানাইয়া লইব। আর যদি আপনার দ্বারা যাহা কিছু হইতেছে তাহা এমন কোন জীন-ভূতের আছরের দরুন হইয়া থাকে যাহাকে দূর করিতে আপনি অক্ষম হইয়া পড়িয়াছেন, তবে আমরা উহার চিকিৎসায় আমাদের যাবতীয় ধনসম্পদ ব্যয় করিতে থাকিব, যতক্ষণ না আপনি সুস্থ হইবেন অথবা আমরা অক্ষম বলিয়া সাব্যস্ত হইব।

সূত্রঃ হায়াতুস সাহাবা

নবী করীম (সাঃ) কর্তৃক দুইয়ের অধিক জামাতকে দাওয়াত প্রদান – পর্ব ২ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

পরবর্তী গল্প
নবী করীম (সাঃ) কর্তৃক দুইয়ের অধিক জামাতকে দাওয়াত প্রদান – পর্ব ২

পূর্ববর্তী গল্প
হযরত আসআদ ইবনে যুরারাহ ও হযরত যাকওয়ান ইবনে আব্দে কায়েস (রাঃ) কে দাওয়াত প্রদান

ক্যাটেগরী