দাউদ (আঃ) এর পরীক্ষা - পর্ব ১ | আমার কথা
×

 

 

দাউদ (আঃ) এর পরীক্ষা - পর্ব ১

coSam ১৪৪


আল্লাহ তাআলার প্রতি হযরত দাউদ (আঃ) ছিলেন অত্যন্ত বিনয়ী। এ বিনয়ীভাবে তাঁকে অত্যাধিক ইবাদাতগুজার করে তোলে। তিনি পরিবারের সকলের মধ্যে এমন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন যাতে দিন রাতের চব্বিশ ঘন্টাই নিজ পরিবারে কেউ না কেউ আল্লাহর ইবাদতে নিয়োজিত থাকে। এ নিয়মের অধীনে হযরত দাউদ (আঃ) ইবাদত রত থাকতেন। ইবাদতের সময় তিনি ইবাদতখানার দরজা বন্ধ করে দিতেন যেন কেউ ইবাদতে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে না পারে। কিন্তু এতদসত্ত্বেও একদিন হঠাৎ ইবাদতখানায় তিনি দু ব্যক্তিকে দেখতে পেলেন। তারা দেয়াল টপকে ভেতরে ঢুকে পড়ে। তাঁদেরকে দর্শন করে মানবীয় দুর্বলতার কারণে তিনি মনে মনে ভীত শংকিত হয়ে উঠেন। তিনি ভাবতে লাগলেন, এদের তো এখানে পৌঁছাবার কথা নয়। তবু অস্বাভাবিক ভাবে কারো গৃহাভন্তেরে প্রবেশ কোন সুলক্ষন নয়। তিনি আগন্তুকদ্বয়কে প্রথমেই কিছু না বলে তাদের কার্যক্রম লক্ষ্য করছিলেন। আল্লাহ ইরশাদ করেন- অর্থঃ আর আপনি কি সে দাবীদারদ্বয়ের খবর জানেন। যারা দেয়াল টপকে ইবাদতখানায় ঢুকে পড়েছিল, তারা যখন দাউদ (আঃ) এর কাছে গেল তখন তিনি তাদের কারণে শংকিত হয়ে পড়েন, তারা বলল, আপনি ভীত হবেন না, আমরা দু'জন পরষ্পর বিবাদমান ব্যক্তি, আমারা একে অন্যের প্রতি সীমালংঘন করেছি। অতএব আপনি আমাদেরকে সরল ও সঠিক পথ দেখান। এ আমার ভাই! তার নিরানব্বই দুম্বা রয়েছে, আর আমার মাত্র একটি দুম্বা। অতঃপর সে বলেন, সের তার দুম্বাগুলোর সাথে তোমার দুম্বাটি মেশাতে চেয়ে যুলুম করেছে। আর অধিকাংশ শরীকই একে অন্যের প্রতি সীমালংঘন করে থাকে। অবশ্য তারা নয় যারা ঈমান এনেছে ও নেক আমল করেছে তাদের সংখ্যা খুবই কম। আর তার ধারনা হল, আমি তাঁকে পরীক্ষা করেছি, অতঃপর তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করতে লাগলেন স্বীয় রবের কাছে এবং তিনি সেজদায় পতিত হলেন ও তার রবের দিকে মনোনিবেশ করলেন। কাজেই আমি তাঁকে ক্ষমা করে দিয়েছি, আর তার জন্য আমার কাছে রয়েছে সম্মানজনক মর্যাদা ও উত্তম ঠিকানা। সে দাউদ! আমি যমীনে আপনাকে আমার স্থালাভিষিক্ত নিযুক্ত করেছি। সুতরাং আপনি ইনসাফের সাথে মানুষের বিচার পরিচালনা করুন এবং প্রবৃত্তি অনুসরণ করবেন না। কেননা, প্রবৃত্তি আপনাকে আল্লাহর পথ হতে বিচ্যুত করবে, নিঃসন্দেহে যারা আল্লাহর পথ হতে বিচ্যুত হয় তাদের জন্য রয়েছে যন্ত্রনাদায়ক আযাব। কেননা, তারা সিহেবের দিনকে ভুলে বসেছে।

পরবর্তী গল্প
দাউদ (আঃ) এর পরীক্ষা - শেষ পর্ব

পূর্ববর্তী গল্প
জিন জাতিকে অধীনস্থ করা

ক্যাটেগরী