উমার ভগ্মীর নির্দেশ আংশিক পালন করলেন | আমার কথা
×

 

 

উমার ভগ্মীর নির্দেশ আংশিক পালন করলেন

coSam ২৩


উমার ছিলেন সে কালে আরব বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে অন্যতম। যে ১৮-১৯ জন লোক লেখাপড়া জানতেন উমার (রাঃ) ছিলেন তাদের একজন। পড়তে না জানলেও আরবগণ আলোচনার মাধ্যমে জ্ঞান চর্চা করতেন। কুরআনের বাণী পাঠ করেই উমার আল-কুরআনের মহত্ব সঠিক ভাবে অনুধাবন করলেন। তাতে তার মন ভরে গেল।

কোন কোন বর্ণনায় উল্লেখ আছে যে, খাব্বাব ইবনে আল আরাত ও গৃহ কোণে লুক্কায়িত অবস্থা হতে বের হয়ে এসে কুরআনের বাণী দেখাতে ফাতিমাকে অনুরোধ করেছিলেন এবং নিজে কুরআন তিলাওয়াত করে শুনিয়েছেন।

কুরআনের আয়াত পাঠ করার পর ইসলামের সত্যতা সম্বন্ধে উমার (রাঃ) নিশ্চিত হলেন এবং রাসূলুল্লাহর অবস্থিতি জানতে চাইলেন। উমারের মন ইসলামের দিকে আকর্ষিত হয়েছে অনুভব করে হযরত খাব্বাব (রাঃ) উমারকে সম্বোধন করে বললেন “হে উম্বার! আনন্দ কর। আমি মনে করি আল্লাহ ইসলামের জন্য তোমাকে কবুল করে নিয়েছেন। তা হয়েছে বিগত বৃহস্পতিবার রজনীতে তোমার জন্য রাসূলুল্লাহর  মুনাজাতের কারণে।

তিনি মুনাজাত করেছিলেন। “হে আমার প্রভূ! উমার ইবনে খাত্তাবকে ছারা ইসলামকে মজবুত কর।” খাব্বাবের কাছ থেকে উমার (রাঃ) রাসূলুল্লাহ রোঃ) সে মুহূর্তে কোথায় আছেন জানতে চাইলেন। খাব্বাব (রাঃ) জানালেন যে, রাসুলুল্লাহ মক্কার সাফা পর্বতের নিকট আরকাম ইবনে আল আরকামের গৃহে অবস্থান করছেন।

উমার (রাঃ) সে গৃহে গমণ করে সেদিনই রাসূলুল্লাহর হাতে ইসলাম গ্রহণ করেন এবং কালীমা শাহাদাতের ঘোষণা দেন।

উমারের ইসলাম গ্রহণে নির্যাতিত মুসলিম শিবিরে আনন্দের ধারা প্রবাহিত হল। তবে উমারের ইসলাম গ্রহণ করার পরও নওমুসলিমদের উপর কুরাইশদের অমানবিক নির্যাতনের মাত্রা বিন্দু মাত্র সীমিত হয়নি।

সুত্রঃ ক্রীতদাস থেকে সাহাবী

পরবর্তী গল্প
অতি লোভ

পূর্ববর্তী গল্প
বোরকার শিক্ষা

ক্যাটেগরী